Unknown

প্রিয় পরীক্ষার্থী, শুভেচ্ছা রইল। জীববিজ্ঞানে মোট নম্বর ১০০। এর মধ্যে রচনামূলক-৪০, নৈর্ব্যক্তিক-৩৫, ব্যবহারিক-২৫। প্রতিটি প্রশ্নের উত্তরের জন্যে নম্বর অনুযায়ী সময় ভাগ করে নেবে। ৪০ নম্বর রচনামূলক পরীক্ষার জন্যে দুই ঘন্টা সময়। প্রতি নম্বরের জন্যে তিন মিনিট সময় বরাদ্দ, সে হিসেবে পাঁচ নম্বরের জন্যে পাবে ১৫ মিনিট। তবে প্রতিটি প্রশ্নের উত্তরের জন্যে ১৫ মিনিট সময় ব্যয় না করে কিছু সময় হাতে রেখে রচনামূলক পরীক্ষা শেষ করবে। ১০ থেকে ১৫ মিনিট সময় বের করে নেবে, যা খাতা রিভিশনসহ অন্যান্য কাজের জন্যে প্রয়োজন হবে।
  • প্রশ্নের উত্তর শুরুর আগেই যেসব প্রশ্নের উত্তর দেবে তা ঠিক করে নিবে। সঠিক প্রশ্ন নির্বাচন করাও এক ধরনের পরীক্ষা।
  • প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর ধারাবাহিকভাবে লিখবে। অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায়, একটি প্রশ্নে ক ও খ থাকলে উত্তরপত্রের এক জায়গায় ক-এর উত্তর আবার অন্য প্রশ্নের দেওয়ার পর খ-এর উত্তর দিয়ে থাকে। এটি পরিহার করবে।
  • জীববিজ্ঞান বিষয়ের বেশির ভাগ প্রশ্ন উত্তর চিত্রনির্ভর। তাই চিত্র হবে বিজ্ঞানসম্মত, সঠিক চিহ্নিতকরণ সংবলিত। মনে রাখতে হবে, চিহ্নিত না করা চিত্রের কোনো মূল্য নেই।
  • চিত্র হতে হবে পরিষ্কার, নির্ভূল, প্রাসঙ্গিক এবং প্রশ্নোত্তরের মাঝামাঝি স্থানে আঁকতে হবে।
  • চিত্র উত্তরপত্রের বাঁ দিকে কাঠ পেনসিল দিয়ে আঁকতে হবে এবং ডান দিকে চিহ্নিতকরণ করতে হবে। প্রতিটি চিহ্নিত চিত্রের নিচে যে চিত্রটি আঁকা হয়েছে তার নাম লেখা অবশ্যই উচিত।
  • চিত্র অঙ্কনের জন্যে HB, 2B পেনসিল ব্যবহার করা ভালো।
  • যেসব প্রশ্নোত্তর চিত্রসংবলিত সেসব প্রশ্নের উত্তর দিলে অধিক নম্বর পাওয়া যায়।
  • যেসব প্রশ্নোত্তরে সংজ্ঞা চাওয়া হয়, তাতে উদাহরণ অবশ্যই দিতে হবে। আর উদাহরণে সঠিকভাবে বৈজ্ঞানিক নাম দেওয়া ভালো।
  • অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, একদম বড় প্রশ্নের চেয়ে ছোট প্রশ্নের উত্তরেও বেশি নম্বর পাওয়া যায়, সেদিকটাও বিবেচনা করা দরকার।
  • কোনো প্রশ্নের উত্তরে তথ্যগত ভুল অবশ্যই পরিহার করতে হবে। যেমন- নাম, সাল, সংখ্যা ইত্যাদি।
  • প্রশ্নের উত্তর হবে প্রাসঙ্গিক। অর্থাৎ প্রশ্নে যে বিষয় চাওয়া হয়েছে উত্তর ঠিক তা-ই দিতে হবে।
  • প্রশ্নের উত্তর পয়েন্ট আকারে লেখা অধিক নম্বর পাওয়ার সহায়ক।
  • কোনো প্রশ্নোত্তরে পার্থক্য থাকলে পার্থক্যসূচক বৈশিষ্ট্যগুলো পয়েন্ট আকারে লেখা ভালো। প্রয়োজনবোধে উদাহরণ, চিত্র দেওয়া যাবে।
  • প্রতিটি প্রশ্নের নম্বরের নিচে কালো বা সবুজ সাইন পেন দিয়ে দাগ দেওয়া যেতে পারে। এতে প্রশ্নের স্পষ্টতা দেখা যাবে।

About the Author

Unknown / Author & Editor

I am currently a student. Living in Bangladesh

0 টি মন্তব্য:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন